ঢাকা, বৃহস্পতিবার ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ৩০শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ডেঙ্গু নিয়ে দলীয় কর্মসূচি

প্রকাশিত : ১০:৩৮ পূর্বাহ্ণ, ৭ আগস্ট ২০১৯ বুধবার ৪৪ বার পঠিত

নিউজ ডেস্ক
alokitosakal

 

ডেঙ্গুজ্বর রাজধানীসহ সারা দেশেই ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। প্রতিনিয়তই চিকিৎসকের চেম্বার, হাসপাতাল ও ক্লিনিকে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের ভিড় বেড়েই চলছে।

আবার অনেকেই দু-একদিনের হালকা জ্বর ও শরীরে ব্যথা অনুভব হলেই আতঙ্কিত হয়ে চিকিৎসকের শরণাপন্ন হচ্ছেন।

ডেঙ্গুর এমন অবস্থা থেকে দেশবাসীকে রক্ষা করার জন্য দীর্ঘদিন ধরেই কাজ করছে বর্তমান সরকার ও আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা।

তবে সম্প্রতি ডেঙ্গু মোকাবিলায় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানের নামে দলীয় নেতাকর্মীদের ফটোসেশন নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচনার মুখে পড়েছেন ক্ষমতাসীন দলটির নেতাকর্মীরা। যা নিয়ে দলটির কেন্দ্রীয় নেতাকর্মীদের মাঝে অসন্তোষ বিরাজ করছে।

তথ্যমতে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে সারা দেশে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে গত ৩১ জুলাই তিনদিনের কর্মসূচি গ্রহণ করে আওয়ামী লীগ।

ঘোষিত ওই কর্মসূচিতে ধারাবাহিকভাবে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকাকে ডেঙ্গুমুক্ত করতে সচেতনতা এবং পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানেও অংশগ্রহণ করেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতারা।

শুধু কেন্দ্রীয় নেতারাই নয়, ক্ষমতাসীন দলটির তৃণমূলপর্যায়ের নেতাকর্মীসহ স্থানীয় সাংসদরাও নিজ নিজ এলাকায় ডেঙ্গু প্রতিরোধে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেন। এমন পরিস্থিতিতেও এডিস মশাবাহিত রোগ ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে না আসায় লাগাতার কর্মসূচি গ্রহণ করে আওয়ামী লীগের হাইকমান্ড।

সূত্রে জানা যায়, ডেঙ্গু প্রতিরোধে প্রতিদিন রাজধানীর বিভিন্নস্থানে পরিচ্ছন্ন কর্মসূচি করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা। ডেঙ্গুবিরোধী ওইসব অভিযানে সরকারের মন্ত্রী ও দায়িত্বশীল নেতারা বেশকিছু স্থানে পরিষ্কার রাস্তায় ঝাড়ু দেয়ার মতো ঘটনাও ঘটেছে।

আবার ওইসব অভিযান কর্মসূচি উদ্বোধন শেষে দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রিপরিষদের সদস্যরা চলে এলে আয়োজকদের দেখা মেলা অনেকটাই দুষ্কর। ডেঙ্গু মশা নিধনের নামে দলীয় নেতাকর্মী ও সরকারের দায়িত্বশীল মন্ত্রিপরিষদের সদস্যদের ফটোসেশনের কারণে অনেকটাই বিব্রত ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

বিশেষ করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অনেক সমালোচনার শিকার হয়েছেন দলটির নেতাকর্মীরা।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে শুধু সাধারণ মানুষ নয়, খোদ নিজ দলের সহযোগী সংগঠনের সাবেক, বর্তমান নেতারাও ডেঙ্গু মোকাবিলায় দায়িত্বশীল নেতাদের ফটোসেশনের সমালোচনা করেন। তারা নিজ নিজ ফেসবুকে এর তীব্র নিন্দা জানান।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ছাত্রলীগের সাবেক এক নেতা বলেন, প্রতিদিন রোগীর সঙ্গে ডেঙ্গুর আতঙ্ক বেড়েই চলছে। কিন্তু আমাদের দলের নেতাকর্মীরা কার্যকর কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। অথচ তারা শুধু মিডিয়ার সামনে কাজ করছে।

মিডিয়া না থাকলে ডেঙ্গু মোকাবিলায় দৃশ্যমান কোনো কাজ পাওয়া যায় না। এর জন্য আওয়ামী লীগের সুনাম নষ্ট হচ্ছে। আ.লীগের দায়িত্বশীল সূত্র মতে, টানা ক্ষমতায় থেকে একের পর এক উন্নয়নের মাধ্যমে দেশে রাজনীতিতে জনপ্রিয়তার শীর্ষে এখন আ.লীগ নেতৃত্বাধীন ১৪ দলীয় জোট সরকার।

রাজনীতির মাঠে এতো সফলতা থাকলেও খোদ নিজ দল ও সরকারের দায়িত্বশীল নেতাকর্মীদের কর্মকাণ্ডের কারণে অনেকটাই বিব্রত সরকারে থাকা দলটি। বিশেষ করে বিরোধী দলের রাজনীতির কাছে সফল হলেও দলীয় নেতাকর্মীদের বেফাঁস কথাবার্তা নিয়ে কিছুটা বিপাকে পড়েছেন তারা। শুধু বিপাকে নয়, আওয়ামী লীগ সরকারের সুনাম নষ্ট হচ্ছে বলে দাবি করে সূত্রটি।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, নামকাওয়াস্তে কয়েকটি কর্মসূচি পালন করলাম এরকম নয়, বেশিরভাগ ওয়ার্ডে এ কর্মসূচি পালন হলো না।

দায়সারা গোছের কর্মসূচির কোনো প্রয়োজন নেই। এতে এডিস মশার প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস হবে না। এডিস মশার উৎস আমরা ধ্বংস করতে পারবো না এবং ডেঙ্গুর যে ভয়ঙ্কর বিস্তার তা আমরা রোধ করতে পারবো না। ডেঙ্গুজ্বরে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।

আমরা মুখে যতটা নিয়ন্ত্রণের কথা বলি না কেন এখনো নিয়ন্ত্রণে আসে নেই। তিনি বলেন, ক্যামেরার সামনে ফটোসেশনের জন্য পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযান নয়। আমাদের সবাইকে সতর্ক হতে হবে। সাবধান হতে হবে এবং আমাদের করণীয় যথাযথভাবে পালন করতে হবে। শুধু ফটোসেশন করলে চলবে না।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমান আমার সংবাদকে বলেন, ডেঙ্গু মোকাবিলা করতে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা অভিযানে গিয়ে শুধু ছবি উঠালেই চলবে না। ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে যেসব কার্যক্রম আছে সবগুলো গ্রহণ করতে হবে।

যাতে আর কোনো মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত না হয় সেই লক্ষ্যে আওয়ামী লীগের সব নেতাকর্মীকে মাঠে থাকতে হবে। তিনি বলেন, দেশে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ে আমাদের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের নির্দেশনা দিয়েছেন।

আশা করি সেই নির্দেশনা মেনেই দলের নেতাকর্মীরা ডেঙ্গু প্রতিহত করতে কার্যকর ভূমিকা পালন করবে। ছবি উঠালেই চলবে না, আগে দেশের মানুষের জন্য কাজ করতে হবে বলে দাবি করেন তিনি।

শেয়ার করে সঙ্গে থাকুন, আপনার অশুভ মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়। আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বর্ণমালা টিভি'কে জানাতে ই-মেইল করুন- bornomalatv@gmail.com আপনার পাঠানো তথ্যের বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব।

বর্ণমালা টিভি'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

1

2

3

© ২০১৯ সর্বস্বত্ব ® সংরক্ষিত। বর্ণমালা টিভি | এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা, ছবি, ভিডিও অনুমতি ছাড়া ব্যবহার বে-আইনি, ডেভোলপ ও ডিজাইন: রাইতুল ইসলাম